YET ANOTHER DEATH – in custody under UAPA

আরেকজন বন্দির মৃত্যু।

কেমন বন্দি? খুনী, ডাকাত? চোর, প্রতারক? না। এমনি এমনি ধরা হয়েছিল রঞ্জিত মুর্মুকে। গাল ভরা নাম UAPA (Unlawful Activities Prevention Act) . ক্ষেতে কর্মরত লোকটিকে দেখে কারুর মনে হয়েছিল বিপজ্জনক হতেও পারে। ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০০৯ এ তাকে — সুস্থ-সবল, কর্মক্ষম মানুষটিকে আটক করা হল ( লালগড় পি এস কেস নং ১৬১/০৯)এবং কোনও বিচার ছাড়াই সে রইল কারার অন্তরালে। যতদিন না সে অত্যাচারে, অভুক্ত থেকে, রোগে ভুগে, বিনা চিকিতসায় মৃত্যুর মুখোমুখি। দু বছরে তার জামিনও হয়নি, বিচার শুরুও হয়নি। চিকিতসার জন্যে আবেদন করাও হয়েছিল (পিটিশন মেমো নং ৫৬০৯/ডব্লু.ও/২৬/৮/১১)। ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১১ রঞ্জিত মুর্মুর মৃত্যু হয়।

এরকম ঘটনা আগেও একবার হয়েছে। স্বপন দাশগুপ্ত, পত্রিকা সম্পাদক। আগে—বাম জমানায়।

এবার হল মা-মাটি-মানুষের আমলে। মাটির আরো কাছাকাছি এক দরিদ্র চাষী। আমরা সবাই লজ্জিত। আমরা যারা এই সরকারকে চেয়েছিলাম, বদল আনতে চেয়েছিলাম – সবাই।

এরপরও কি আমরা এই বিকৃত আইনটির উচ্ছেদের জন্যে তীব্রভাবে সরব হবনা? প্রতিবাদে রুখে দাঁড়াবনা? এই মৃত্যুর জন্যে কেন কেউ দায়ি হবে না? সরকারকে এই অধিকার আমরা কেন দেব? কেন এতদিন সহ্য করব? এই আইন লাগু করেছে রাজ্য সরকার, তাই রাজ্য সরকারই তা প্রত্যাহার করতে পারে।

কোথাও কোন দাঙ্গার জন্যে দু’দিন কাউকে আন্দাজে আটকে রাখা যায়, গোলমাল মিটে গেলে ছেড়ে দিতে হয়। কিন্তু স্রেফ আন্দাজের উপর নির্ভর করে কাউকে বছরের পর বছর আটকে রেখে মেরে ফেলার অধিকার রাষ্ট্রকে কে দিল?

এর পরিণতি ভয়ঙ্কর হতে চলেছে। এই নিষ্ঠুর উদাসীনতার মাশুল গুনতে হবে ক্ষমতায় আসীন সরকারকেই।

[দু’ দিনের মধ্যে সম্পূর্ণ রিপোর্ট তুলে দেওয়া হবে এই ওয়েবসাইটে]

***********************************************************************************

By Santosh Sharma

From Dainik Viswamitra-31.10.11
Share

Leave a Reply

 

 

 

You can use these HTML tags

<a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>